07:28am  Sunday, 01 Nov 2020 || 
 ||


গেলো বছর আলুর ন্যায্য দাম না পাওয়ায় লোকসান হয়েছে। ধার দেনা করে পুঁজি খাটিয়ে অধিকাংশ কৃষক হয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত, বইতে হয়েছে দেনার ভার। কিন্তু এতে তারা ক্ষান্ত হননি। গত বারের লোকসান ঘোচাতে আবারও স্বপ্ন বুনছেন নীলফামারীর কৃষকরা। জেলার বেশ কয়েকটি এলাকা ঘুরে দেখা যায়, চলতি মওসুমে আগাম আলু চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। গত বছর যে ক্ষতি হয়েছে তা পুষিয়ে নিতে এবার নতুন উদ্যমে তারা আগাম আলুর চারা ইতোমধ্যে বপন করেছেন। এখন চলছে পরিচর্যার কাজ। আলুর ভরা মওসুমের আগেই যাতে বাজারে উঠাতে পারেন আর ভালো দাম পান, সে লক্ষ্য নিয়েই তারা এখন পরিচর্যায় মাথার ঘাম পায়ে ফেলছেন। নীলফামারীর সদর উপজেলার চাপড়া সরনজানী ইউনিয়নের নাছিরপাড়া গ্রামের আলু চাষি নজরুল ইসলাম বাংলামেইলকে বলেন, গত মওসুমে নীলফামারীতে ক্রেতা না থাকায় লাভের আশায় খুলনা নিয়ে গিয়েও আলু বিক্রি করতে পারিনি। অবশেষে সেখানেই আলু ফেলে রেখে ট্রাক ভাড়া গচ্ছা দিয়ে বাড়ি ফিরে এসেছি। গত মৌসুমের লোকসান পুষিয়ে নিতে এবারও বুক ভরা আশা নিয়ে আশা নিয়ে আলু আবাদ করছি। তিনি জানান, গত মওসুমের চেয়ে এবারে আলুর বীজ ও সারের দাম কিছুটা বেশি। এতে উৎপাদন খরচও বেশি হবে। একই এলাকার চাষি আব্দুল মালেক ও খবির উদ্দিন বলেন, গত মওসুমে আট আনা কেজি দামে আলু কেনার লোকও ছিলনা। এবার যদি লাভ হয়, এই আশায় এবারে ৩০ টাকা কেজি দরে বীজ আলু নিয়ে আবাদ করছি। এবার বিঘাপ্রতি কমপক্ষে খরচ হবে ১০ হাজার টাকা। বাংলাদেশ ক্ষেত মজুর সমিতি নীলফামারী জেলা শাখার সভাপতি শ্রীদাম দাস বাংলামেইলকে বলেন, পরিবহন, বাজারজাত, রপ্তানি এবং প্রক্রিয়াকরণ ব্যবস্থা করা গেলে শুধু কৃষকরা নয়, সার্বিকভাবে দেশ উপকৃত হবে। অবিলম্বে সরকারের এদিকে নজর দেওয়া প্রয়োজন। এ ব্যাপারে নীলফামারী সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কেরামত আলী বলেন, গতবারের চেয়ে এবার কৃষকরা লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিভিন্ন কারণে গত মওসুমে আলু চাষিরা দাম না পেয়ে লোকসান গুনেছে। এবারে আবহাওয়া অনুকূলে রয়েছে। আগাম জাতের আলুর আলাদা চাহিদা থাকে। আশা করছি এবারে কৃষকেরা লাভবান হবে। গত মওসুমে জেলায় ২২ হাজার চারশ ১৫ হেক্টর জমিতে চার লাখ ২২ হাজার ৯২ মেট্রিক টন আলু উৎপাদন হলেও চলতি মওসুমে এখন পর্যন্ত দশ হাজার হেক্টর জমিতে আগাম জাতের আলু চাষাবাদ করা হয়েছে। গ্রানুলা, পেট্রোলিক ও ক্যারজ জাতের আগাম আলু চাষাবাদ করছেন বলে জানায় কৃষি বিভাগ।

 

কৃষি



Editor : Husnul Bari
Address : 8/A-8/B, Gawsul Azam Super Market, Newmarket, Dhaka-1205
Contact : 02-9674666, 01611504098

Powered by : Digital Synapse