06:40pm  Sunday, 17 Oct 2021 || 
 ||


মানসম্মত ওষুধ উৎপাদনে চূড়ান্তভাবে ব্যর্থ হওয়া ২০টি কোম্পানির উৎপাদন বন্ধই রাখতে হবে। এ সংক্রান্ত হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত চেয়ে দুটি কোম্পানির আবেদনে সাড়া দেয়নি আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বেঞ্চ এ বিষয়ে কোনো আদেশ দেননি (নো অর্ডার)। তবে আগামী ১৮ আগস্টের মধ্যে এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। আদালতে আবেদনকারী ইউনিভার্সেল ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের পক্ষে সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী ও নূরুল ইসলাম সুজন এবং এমএসটি ফার্মার পক্ষে সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ফিদা এম কামাল শুনানি করেন। রিট আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার আজমালুল হোসেন কিউসি ও মনজিল মোরসেদ। এ আদেশের ফলে ২০ কোম্পানির ওষুধ উৎপাদন বন্ধে হাইকোর্টের দেওয়া নির্দেশই বহাল থাকল বলে জানিয়েছেন রিটের পক্ষের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। একইসঙ্গে হাইকোর্টের জারি করা রুল আগামী ১৮ আগস্টের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বলেছেন সর্বোচ্চ আদালত। গত ৭ জুন হাইকোর্ট এক আদেশে মানসম্পন্ন ওষুধ উৎপাদনে ব্যর্থ হওয়ায় হাইকোর্ট এক সপ্তাহের মধ্যে ২০টি কোম্পানির উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ দেয়। একইসঙ্গে ১৪টি প্রতিষ্ঠানের এন্টিবায়োটিক (ননপেনিসিলিন, পেনিসিলিন ও সেফালোস্পোরিন) উৎপাদন বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেয়। এই নির্দেশনা বাস্তবায়নের পর দুই সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ চারজনকে প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের উৎপাদন বন্ধে পুলিশ মহাপরির্শক (আইজিপি) ও র‌্যাবের মহাপরিচালককে সর্বাত্মক সহযোগিতারও নির্দেশ দেন আদালত। একইসঙ্গে মানসম্মত ওষুধ উৎপাদনে ব্যর্থ ২০টি কোম্পানির লাইসেন্স বাতিল ও ১৪টি কোম্পানির এন্টিবায়োটিক লাইসেন্স বাতিলে সরকারের নিষ্ক্রিয়তাকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং তাদের লাইসেন্স কেন বাতিল করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। চার সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, পুলিশের মহাপরিদর্শক, র‌্যাবের মহাপরিচালক ও পরিচালক, জাতীয় ভোক্তা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও ঔষধ প্রশাসনের পরিচালক এবং ওষুধ শিল্প সমিতির সাধারণ সম্পাদককে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। হাইকোর্টের সেই রায়ের বিরুদ্ধে ইউনিভার্সেল ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড ও এমএসটি ফার্মা চেম্বার আদালত যান। গত ১৩ জুন বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার কোনো আদেশ না দিয়ে (নো অর্ডার) ১৫ জুন শুনানির দিন ঠিক করে নিয়মিত বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। ভেজাল এবং নিম্নমানের ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো চিহ্নিত করতে ২০১৪ সালের ২০ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি পাঁচ সদস্যের একটি বিশেষজ্ঞ তদন্ত কমিটি গঠন করে। কমিটির সদস্যরা হলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক আ ব ম ফারুক, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক মো. সাহাবুদ্দিন কবীর চৌধুরী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক ড. সীতেশ চন্দ্র বাছার এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল ফার্মেসি অ্যান্ড ফার্মাকোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. শওকত আলী। দেশের ৮৪টি ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সরেজমিন পরিদর্শন শেষে এ বিশেষজ্ঞ তদন্ত কমিটি একটি প্রতিবেদন চলতি বছর ১ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির কাছে জমা দেন। যাতে মানসম্পন্ন ওষুধ উৎপাদনে চূড়ান্তভাবে ব্যর্থ হওয়া ২০টি ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করে। কিন্তু সেই সুপারিশ বাস্তবায়ন না হওয়ায় গত ৫ জুন মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস এন্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে হাইকোর্টে একটি রিট দায়ের করা হয়। চূড়ান্তভাবে ব্যর্থ ২০টি কোম্পানি হলো, এক্সিম ফার্মাসিউটিক্যাল, এভার্ট ফার্মা, বিকল্প ফার্মাসিউটিক্যাল, ডলফিন ফার্মাসিউটিক্যাল, ড্রাগল্যান্ড, গ্লোব ল্যাবরেটরিজ, জলপা ল্যাবরেটরিজ, কাফমা ফার্মাসিউটিক্যাল, মেডিকো ফার্মাসিউটিক্যাল, ন্যাশনাল ড্রাগ, নর্থ বেঙ্গল ফার্মাসিউটিক্যাল, রিমো কেমিক্যাল, রিদ ফার্মাসিউটিক্যাল, স্কাইল্যাব ফার্মাসিউটিক্যাল, স্পার্ক ফার্মাসিউটিক্যাল, স্টার ফার্মাসিউটিক্যাল, সুনিপুণ ফার্মাসিউটিক্যাল, টুডে ফার্মাসিউটিক্যাল, ট্রপিক্যাল ফার্মাসিউটিক্যাল এবং ইউনিভার্সেল ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড। এছাড়া মানসম্মমত এন্টিবায়োটিক ওষুধ উৎপাদনের ব্যর্থ ১৪টি কোম্পানি হচ্ছে আদ-দ্বীন ফার্মাসিউটিক্যাল, আলকাদ ল্যাবরেটরিজ, বেলসেন ফার্মাসিউটিক্যাল, বেঙ্গল ড্রাগস, ব্রিস্টল ফার্মা, ক্রিস্ট্যাল ফার্মাসিউটিক্যাল, ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যাল, মিল্লাত ফার্মাসিউটিক্যাল, এমএসটি ফার্মা, অরবিট ফার্মাসিউটিক্যাল, ফার্মিক ল্যাবরেটরিজ, ফনিক্স কেমিক্যাল, রাসা ফার্মাসিউটিক্যাল এবং সেভ ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড।

 

প্রধান সংবাদ



Editor : Husnul Bari
Address : 8/A-8/B, Gawsul Azam Super Market, Newmarket, Dhaka-1205
Contact : 02-9674666, 01611504098

Powered by : Digital Synapse