01:02am  Saturday, 31 Oct 2020 || 
 ||


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট :
আগামী ১৬ নভেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন হবে। এর আগে ১১ও ১২ নভেম্বর হবে মহানগর দক্ষিণ ও উত্তরের সম্মেলন।
দীর্ঘদিন পর হতে যাচ্ছে আওয়ামীলীগের সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন। আর এ সম্মেলনে পদ প্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ ও শুরু হয়ে গেছে এরই মধ্যে, নানা কারণে যারা দলের দূর্নাম কুড়িয়েছে এমন নেতারা নয় বরং স্বচ্ছ ভাবমূর্তিরই আগামী সম্মেলনের নেতৃত্বে আশার নির্ণয়াক হবে এমনটাই আশা করেছেন সবাই।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে এবার যারা পদ প্রত্যার্শীতাদের প্রত্যেকের অতীত ও বর্তমান কর্মকান্ডকে নজর রাখছেন আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অপরাধ কর্মে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে তারা অনেক টাই ছিটকে পরতে পারেন।
সর্বশেষ ২০১২ সালে মোল্লা মোঃ আবু কাওসারকে সভাপতি ও পঙ্কজ নাথকে সাধারণ সম্পাদক করে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি হয়েছিল। মেয়াদ পেরিয়ে গেলে ও এই কমিটি এখনো কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যে ক্যাসিনো কান্ডে নামে এসেছে কাওসার মোল্লার নামে ও। দীর্ঘ দিন সম্মেলন না হওয়ায় প্রদ প্রত্যাশী অনেকেই কোনাঠাসা ছিলেন।
সম্মেলনের তারিখ ঘোষনার পর পর ই তারা মাঠে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আর নেতৃত্বের লড়াইয়ের এ তালিকায় রয়েছেন বর্তমান কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ নাথ সহ সংগঠনের আরো পাচ সাংগঠনিক সম্পাদক। এরা হলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল হাসান জুয়েল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র লীগের সাবেক সভাপতি শেখ সোহেল রানা টিপু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ শাকিব বাদশা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল আলীম বেপারী ও সাবেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক এ.কে.এম. আজিম। এছাড়া ও কেন্দ্রীয় শীর্ষ পদের লড়াইয়ে রয়েছেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্মলর ঞ্জন গুহ, সহ-সভাপতি মতিউর রহমান মতি, সহ-সভাপতি মজিবুর রহমান স্বপন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেজবাহউদ্দিন সাচ্চু।
এছাড়া ও ২০০১ নির্বাচন পরবর্তী নির্যাতন জুলুম, গ্রেনেড হামলা ও ১/১১ নেত্রী মুক্তি আন্দোলনে বিশেষ ভূমিকা রাখায় আলোচনায় আছেন দপ্তর সম্পাদক সালেহ মাহমুদ টুটুল, সাবেক ছাত্র নেতা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সমাজ কল্যাণ সম্পাদক নাফিউল করিম নাফা, স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য, সাবেক ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা আহম্মেদ উল্লাহ জুয়েল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেকসহ-সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন মাদবর, স্বেচ্ছাসেবক লীগের মৎস ও প্রাণীসম্পদ এ এফ এম মাহবুবুল হাসান, সহ-গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বিটু, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-দপ্তর সম্পাদক, শহীদুল্লাহ হল ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক আজিজ।
সম্মেলন সম্বন্ধে প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বাহাউদ্দিন নাসিম বলেন, নতুন নেতা নির্বাচনের ক্ষেত্রেত্যাগীদের মূল্যায়ন করা হবে । বিরোধী দলে থাকা অবস্থায় ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হবে। এছাড়া ১/১১ সময় অনেকের নির্যাতিত হয়েছেন ঐ সময়ে দলের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছেন তারা এগিয়ে থাকবেন ।
ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিনের সর্বশেষ সম্মেলন হয়েছিল ২০০৬ সালের ৩১ শে মে উত্তরের সভাপতি নির্বাচিত হন মোবাশ্বের চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হন ফরিদুর রহমান খান, তখন দক্ষিনের সভাপতি নির্বাচিত হন দেবাশীষ বিশ্বাস,সাধারণ সম্পাদক হন আরিফুর রহমান টিটু।
এবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্বের লড়াইয়ের জন্য আলোচনা রয়েছেন এরা হলেন বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তারিক সাঈদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি কামরুল হাসান রিপন। জৈষ্ঠ্য যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান রানা, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও মহানগর দক্ষিনের সমবায় ও স্বনির্ভরতা বিষয়ক সম্পাদক এইচ এম কামরুল হাসান আইয়ুব।
উত্তরের নেতৃত্বে পাওয়ার দৌড়ে রয়েছেন সাধারণ সম্পাদক ফরিদুর রহমান ইরান, সাংগঠনিক সম্পাদককে এম মনোয়ারুল ইসলাম বিপুল, ছাত্র লীগ মহানগর উত্তরের সাবেক সভাপতি ইছাহাক মিয়া, জৈষ্ঠ্য সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মোঃ গোলাম রব্বানি।
আপডেট : ২০১৯ অক্টোবর ২৩ ১৭:৪৯:২৩

 

রাজনীতি



Editor : Husnul Bari
Address : 8/A-8/B, Gawsul Azam Super Market, Newmarket, Dhaka-1205
Contact : 02-9674666, 01611504098

Powered by : Digital Synapse